শীতে রোগমুক্ত থাকার উপায় – জেনে নিন কি করবেন আপনি

শীতে রোগমুক্ত থাকার উপায় - যেনেনিন কি করবেন আপনি
শীতে রোগমুক্ত থাকার উপায়

 শীতে রোগমুক্ত থাকার উপায় –  প্রতিটি মানুষই চায় সুস্থ জীবনযাপন করতে। কিন্তু মাঝে মাঝে আবহাওয়াজনীত কারণে মানুষ অসুস্থ হয়ে যায়। যেমন শীতে মানুষের বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়, বিশেষ করে যাদের হাঁপানি রোগ রয়েছে তাদের শীতে বিশেষরকমের অসুবিধা হয়। তাই আজ কথা বলবো কিভাবে শীতে আপনি বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্ত থাকবেন সে সম্পর্কে।

অতিরিক্ত শীতে শ্বাসনালি বন্ধ হয়ে শ্বাসকষ্ট ও কাঁশি বেড়ে যেতে পারে। এছাড়াও শীতে শুষ্ক বায়ু, ভাইরাস সংক্রমন এলার্জি রোগিদের সমস্যা বাড়িয়ে তোলে। এছাড়াও শীতে নানা রকমের সমস্যা হয়ে থাকে, শীতে রোগমুক্ত থাকতে হলে নিজেদের কিছু অভ্যাস পরিবর্তন করা উচিত।

শীতে রোগমুক্ত থাকার উপায় –

১ – শীতে লক্ষ্য করলে দেখা যায় অনেকেই ঠান্ড, কাশি, বুকে কফ জমা, সাইনোসাইটিসের ব্যথা ইত্যাদিতে ভুগে সেক্ষেত্রে করনীয় হলো শীতের রাতে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস উষ্ণগরম পানি পান করা এতে মেটাবলিজমের হার বাড়ে এবং ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা দূর হয়।

২ – শীতে আবহাওয়া শুষ্ক বলে শুধু আমাদের শরীরের উপরের চামড়াই শুকিয়ে যায় না ভেতরর অংশ ও শুকিয়ে যায় এতে শ্বাসকষ্ট, হাঁপানি বেশি হয় এছাড়াও সর্দি শুকিয়ে শ্বাসনালী বন্ধ হওয়ার আশংকা থাকে তাই শীতে ভালো থাকতে হলে বেশি বেশি পানি পান করা উচিত। শীতে দিনে কমপক্ষে ২লিটার পানি পান করতেই হবে। শীতে মানুষের পানির চাহিদা কম থাকে কারণ এ সময় পিপাসা কম পায় কিন্তু শীতেই বেশি বেশি পানি পান করা উচিত। কারণ শীতে পানির অভাবে শরীরে বিভিন্ন রেশ দেখা দেয়।

৩ – শীতের সময়ে দিনের তুলনায় রাত বড় হয়ে থাকে তাই বেশি সময় মানুষ ঘুমিয়ে কাটিয়ে দেয় এছাড়াও অতিরিক্ত শীতে অনেকেই শুয়ে থাকে বা বসে থাকে অন্য সময়ের তুলনায় শীতে মানুষ কম হাঁটাচলা করে এতে মানুষের মাংসপেশি গুলো অনেকটাই মন্থর হয়ে যায়। এতে হাঁটাচলা করতে গেলে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ব্যাথা অনুভব হয়। তাই শীতের সময় উচিত নিয়মিত ব্যায়াম করা, এবং ঘুম থেকে উঠার সময় লাফিয়ে না উঠে ধীরে ধীরে উঠা কারন লাফিয়ে উঠলে মাংসপেশী বা হাড়ে টান লাগতে পারে।

৪ – শীতে অনেকেই পা’ য়ের সমস্যায় ভুগেন। শীতে পায়ের চামড়া শুকিয়ে পা ফেটে যায় এছাড়াও পা থেকে দুগন্ধ হয়।। তাই শীতে উচিত হালকা গরম পানি দিয়ে ভালোভাবে সাবান দিয়ে ঘষে পা পরিষ্কার করা। নিয়মিত বাহিরে থেকে এসে পা পরিষ্কার করা ও ঘুমানোর আগে পা ভালো ভাবে পরিষ্কার করে হালকা অলিভ অয়েল মেখে ঘুমানো। এছাড়াও খালি পা য়ে হাটা থেকে বিরত থাকা এতে পা অনেকটাই ভালো থাকে।

৫. শীতে অনেক সময় দাত ও মুখে সমস্যা হয়ে থাকে।দাঁতে ব্যথা ও মুখ থেকে দুর্গন্ধ বের হয়। আর এ সমস্যা থেকে মুক্ত থাকতে হলে উচিত হালকা গরম পানি দিয়ে ভালো ভাবে মুখ পরিষ্কার করা ও ভিটামিন জাতীয় খাবার গ্রহণ করা।  শীতে খাদ্য তালিকায় ভিটামিন -সি বেশি রাখা। কারণ ভিটামিন-সি ঠান্ডাজনিত সমস্যা, নিউমোনিয়া, ফুসফুসের অন্যান্য সমস্যা দূর করে।

শীতে নিজেকে সুস্থ রাখতে উল্লেখিত নিয়ম গুলো আমাদের সকলের অনুসরণ করা উচিত।

আরো পড়ুন –

নিউমোনিয়ার হবার কারণ, এর লক্ষণ ও প্রতিকার!
শেয়ার করুন -

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন